Print Friendly, PDF & Email

ইউনিকোড কী ?

ইউনিকোড অর্থাৎ ইউনিক কোড । ইউনিকোড বিশ্বের প্রতিটি ভাষার প্রতিটি অক্ষরের জন্য একটি করে নম্বর প্রদান করে, সেটা যে প্লাটফর্মেই হোক, সেটা যে প্রোগ্রামেই হোক, সেটা যে ভাষারই হোক। ফলে বিশ্বের যেকোন কম্পিউটারে নিজস্ব মার্তৃভাষায় লেখা যেকোন তথ্য কোনরূপ ঝামেলা ছাড়াই দেখা ও পড়া সম্ভব।

কম্পিউটারে সকল লিপি বা অক্ষর সংরক্ষিত হয় একটি করে একক সংখ্যা দিয়ে। ইউনিকোড আবিষ্কার হওয়ার আগে কম্পিউটারে নিজমার্তৃভাষায় লেখার জন্য বিভিন্ন লিপিসংকেত  ব্যবহার হতো। ফলে একই লিপিসংকেতের সংখ্যা বিভিন্ন ভাষায় বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার হতো। তাই কম্পিউটারে একইসাথে একাধিক ভাষায় তথ্য সংরক্ষণ দূরহ হতো। বিশেষ করে সার্ভারে ও ওয়েবসাইটে তথ্য সংরক্ষণ ও প্রকাশ জটিল আকার ধারণ করতো।

ইউনিকোড আবিষ্কারের ফলে বিশ্বের প্রতিটি ভাষার জন্য এক একটি নির্দিষ্ট ইউনিক কোড বরাদ্দ করার ফলে একইসাথে একাধিক ভাষার লেখা ও দেখা কোন সমস্যা করে না। বিশাল লিপিসংকেতের সমর্থন থাকায় ক্লায়েন্ট সার্ভার বা বহুমুখী এ্যপ্লিকেশন এবং ওয়েবের গঠনে পুরোনো লিপিমালার ব্যবহার না করে ইউনিকোডের ব্যবহার অনেক খরচ কমিয়ে আনতে পারে। ইউনিকোড কোনো বাড়তি প্রকৌশল ছাড়াই একটি সফটওয়্যার বা ওয়েবসাইটকে বিভিন্ন প্লাটফর্ম, ভাষা এবং দেশে ব্যবহারযোগ্যতা দেয়। এটা ব্যবহারের ফলে ডাটা বিভিন্ন সিস্টেমের মধ্যে দিয়ে আনাগোনা করতে পারে কোনো রকম বিকৃতি ছাড়াই। ইউনিকোড যে প্রতিষ্ঠান বরাদ্দ করে দেয় তার নাম “ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম”।

ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম কি ?

ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান সংস্থা যেটা তৈরী হয়েছে ইউনিকোড বৈশিষ্ট্যের উন্নয়ন, ব্যবহার এবং বিস্তার করার জন্য, যেটা আধুনিক সফটওয়্যার এবং বৈশিষ্ট্যর প্রতিনিধিত্ব করে। এরা সকল কম্পিউটার শিল্পের সাথে ইউনিকোডের সমন্বয়ের মাধ্যম হিসেবে কাজ করে।

ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম প্রতিনিয়ত এর ব্যবহার, বিস্তুতির জন্য কাজ করে যাচ্ছে এবং বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বাগ বা বলা যায় সময়ের চাহিদার অনুপাতে আপডেট করার কাজ চলছে। সফটওয়্যারের জন্য বিভিন্ন সময় যেমন বিভিন্ন আপডেট বের হয় তেমনি ইউনিকোড এর বিভিন্ন আপডেট বের হয় যাকে বলে “unicode standard”. বর্তমানে  unicode standard 6.2 চলছে। বিভিন্ন সফটওয়্যার নির্মাতারা এই standard ব্যবহার করে মাল্টিল্যাঙ্গুয়েজ সফটওয়্যার প্রস্তুত করে। ইউনিকোড আবিষ্কারের ফলে সহজে একভাষা হতে অন্যভাষায় কম্পিউটারে translate করা যায়।

নিকস কনভার্টার কি ?

“নিকস কনভার্টার ” মুলত non-unicode ডকৃমেন্টকে unicode ডকুমেন্টে রুপান্তরিত করারএকটি সফটওয়্যার। ২০০৮ সালে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উদ্দোগে এর অভ্যন্তরীন একটি প্রকল্পের আওতায় এটি করা হয়। এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে non-unicode বাংলা লেখার সফটওয়্যার বিজয় ও মুনীর এ লেখা MS Word, MS Excel, MS Powerpoint ডকুমেন্ট এবং MS Access ও MySQL ডাটাবেজ-কে unicode standard ডকুমেন্টে রুপান্তরিত করে। বাজারে প্রাপ্ত non-unicode ডকুমেন্টকে unicode ডকুমেন্টে রুপান্তরিক করার যেসকল সফটওয়্যার পাওয়া যায় তার চেয়ে অনেক কম সময়ে ও নির্ভুলভাবে রুপান্তরিত করতে পারে। এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে ব্যাচ কনভার্সান করা যায় অর্থাৎ, একসাথে একাধিক MS Word, MS Excel, MS Powerpoint ডকুমেন্টকে রুপান্তরিত করতে পারে।

ডাউনলোড নিকস কনভার্টার ১.১

নিকস কনভার্টার আপডেট 64 বিট

(আপনার উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম যদি 64 bit হয় এবং নিকস কনভার্টার ১.১ ইনিষ্টল করে যদি সফটওয়্যারটি কাজ না করে তবে এই প্যাচটি ডাউনলোড করে আনজিপ করুন। আনজিপকৃত ফাইলগুলো এবার আপনার কম্পিউটারে যেখানে NikoshConverter program টি ইনিষ্টল হয়েছে অর্থাৎ (C:\Program Files (x86)\NikoshConverter) ফোল্ডারে paste করুন।)

ডাউনলোড নিকস কনভার্টার 64 বিট (প্যাচ)

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*